স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ৩০ নভে ২০২৩ ০৫:১১

স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

সুরমাভিউ:-  সিলেট-৫ (জকিগঞ্জ-কানাইঘাট) সংসদীয় আসন থেকে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিলেন ইসলামি শিক্ষা আন্দোলনের প্রাণপুরুষ, বাংলাদেশ আনজুমানে আল-ইসলাহ’র’র মুহতারাম কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী। বৃহস্পতিবার বিকালে সিলেটের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মাও. হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলীর পক্ষে আল-ইসলাহ নেতৃবৃন্দ মনোনয়ন পত্র জমা করেন।

জকিগঞ্জ-কানাইঘাট বরাবরই ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও আলেম উলামাদের পুণ্যভূমি। এই আসন থেকে এর আগে মাওলানা মুশাহিদ বায়মপুরী (রহ), মাওলানা ওবায়দুল হক উজিরপুরী (রহ) ও মাওলনা ফরীদউদ্দীন চৌধুরী সংসদ নির্বাচিত হয়েছিলেন। তাছাড়া দীর্যদিন থেকে মাওলনা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলীকে এই আসন থেকে নির্বাচন করার জন্য গণমানুষের দাবী ছিল। অবশেষে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দেশ, জাতি ও শিক্ষা ব্যবস্থার স্বকীয়তা রক্ষার বৃহত্তর স্বার্থে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে স্বতন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিলেন মাও. হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী।

মাওলনা হুছামুদ্দীন চৌধুরী উপমহাদেশের প্রখ্যাত বুযুর্গ, শামসুল উলামা আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (রহ)-এর সুযোগ্য ছাহেবজাদা। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও আন্দোলনের কারনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়। তাছাড়া এদেশের ইসলামী শিক্ষা বিস্তারে ও ধর্মীয় শিক্ষার স্বকীয়তা ও স্বাতন্ত্র বজায় রাখতে বরাবরই সকল আন্দোলন সংগ্রামে তার ভূমিকা ছিল অগ্রগন্য। মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলীর হুংকার ও আন্দোলনে শিক্ষা ব্যবস্থায় ডারউইনের মতবাদ উৎসাত করতে ও মাধ্যমিক পর্যায়ের বিতর্কিত বইগুলো প্রত্যাহার করতে বাধ্য হয়েছিল সরকার।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ