আওয়ামীলীগ বনাম আওয়ামীলীগ; হতাশায় ‘কিংস পার্টি’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ৩০ নভে ২০২৩ ১২:১১

আওয়ামীলীগ বনাম আওয়ামীলীগ; হতাশায় ‘কিংস পার্টি’

আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্প্রতি আলোচনায় আসে ‘কিংস পার্টি’ খ্যাত কয়েকটি ছোট দল। তৃণমূল বিএনপি, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলন (বিএনএম) ও যুক্তফ্রন্টকে নিয়ে প্রথম দিকে আগ্রহী হন বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত, দলছুট ও নিষ্ক্রিয় নেতারা। একতরফা নির্বাচনে এমপি হওয়ার আশায় নতুন দল তৃণমূল বিএনপিতে যোগ দিয়েছিলেন বিএনপি’র সাবেক দুই নেতা শমসের মবিন চৌধুরী ও এডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। একই উদ্দেশ্যে বিরোধী জোটের রাজপথের আন্দোলন ছেড়ে যুক্তফ্রন্ট গঠন করেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মো. ইবরাহিম। তবে দিন যত গড়াচ্ছে হতাশা ভর করছে এসব নেতাদের মধ্যে। কারণ এসব নেতা যে আসনগুলো থেকে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন বা নির্বাচন করতে চাইছেন সেখানে রয়েছে সরকার দলের হেভিওয়েট প্রার্থী। সেজন্য তাদের বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। ফলে অনেকে রাখঢাক না করে প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ ছাড়া এ পর্যন্ত আসন নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে তাদের তেমন আলোচনাও হচ্ছে না। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রতি আসনে ডামি প্রার্থী দেয়ার নির্দেশনা এসেছে।

সেক্ষেত্রে জাতীয় নির্বাচনে তার বিজয়ী হওয়া অনেকটা অনিশ্চিত বলা যায়। এ বিষয়ে এডভোকেট শাহজাহান বলেন, আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী একজন কিংবা একশ’জন থাকলেও আমার কোনো সমস্যা নাই। আমার নিজস্ব ভোট রয়েছে। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের লোকেরাও আমাকের ভোট দিবে।

এদিকে গতকাল ২৩০ আসনে একক প্রার্থী ঘোষণা করেছে তৃণমূল বিএনপি। তবে গতকাল পর্যন্ত প্রার্থী ঘোষণা করতে পারেনি বিএনএম। দলটির এক নেতা জানিয়েছেন, গতকালও কয়েকজন দলে যোগ দিয়ে মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। শেষদিনে হয়তো ৩০০ আসনেই একক প্রার্থী ঘোষণা করবেন।