সিলেটর আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মাসুক উদ্দিন আহমদকে বিমানবন্দরে সংবর্ধনা

প্রকাশিত:সোমবার, ২৭ নভে ২০২৩ ০৮:১১

সিলেটর আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থী শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মাসুক উদ্দিন আহমদকে বিমানবন্দরে সংবর্ধনা

সুরমাভিউ:-  একসঙ্গে ফিরলেন সিলেটের আওয়ামীলীগের দুই প্রার্থী। সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মহানগর সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) ঢাকা থেকে সিলেট বিমানবন্দরে অবতরণ করলে দুই নেতাকে স্বাগত জানাতে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বিমান বন্দরে উপস্থিত হন। এসময় দুই নেতা সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

এদিকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দীর্ঘ ১০ বছর পর এবার সিলেট-২ (বিশ্বনাথ-ওসমানীনগর) আসনে স্বাধীনতা ও উন্নয়নের প্রতীক ‘নৌকা’র মনোনয়ন পেয়েছেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী।

রবিবার (২৬ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে সিলেট-২ আসনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে শফিকুর রহমান চৌধুরীর নাম ঘোষণা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি। আর শফিকুর রহমান চৌধুরীর নাম ঘোষণার পর থেকেই সিলেট-২ আসনের দুই উপজেলা বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরে বইছে আনন্দের জোয়ার, চলছে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ।

রবিবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিশ্বনাথ পৌর শহরে তাৎক্ষণিক আনন্দ মিছিল বের করে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, ২০০৮ সালে নৌকা প্রতীক নিয়ে সংসদ নির্বাচিত হয়ে ছিলেন শফিকুর রহমান চৌধুরী। পরবর্তিতে ২০১৪ সালে শফিকুর রহমান চৌধুরীকে আবারও নৌকার মনোনয়ন দেয়া হয়। এরপর দলের সিদ্ধান্তে মহাজোটের প্রার্থীকে আসন ছেড়ে দেন। তিনি আসন ছেড়ে দেওয়ার পর ওই আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী এহিয়া লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালেও ২য় দফা মহাজোটের প্রার্থী ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী এহিয়াকে আসন ছেড়ে দেন শফিকুর রহমান চৌধুরী। তবে ওই নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থীর ভরাডুবি হয়, বাজেয়াপ্ত হয় তার মনোননয়ন। নির্বাচনে সূর্য প্রতীক নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন গণফোরাম নেতা মোকাব্বির খান।

নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থী সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগের টিকেট পেয়ে বিএনপির প্রার্থীকে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়েছিলাম। বিশ্বনাথ-ওসমানীনগরবাসীর দীর্ঘ ১০ বছরের অপেক্ষা শেষ হয়েছে। সকল নেতাকর্মীকে প্রাধান্য দিয়ে আগামী ৭ জানুয়ারি নৌকা প্রতীক বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এ আসন উপহার দেয়া হবে। বিজ্ঞপ্তি

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ