চাঁদা দাবি ও মারধরের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন, থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত:সোমবার, ১৩ নভে ২০২৩ ১১:১১

চাঁদা দাবি ও মারধরের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন, থানায় অভিযোগ

সুরমাভিউ:-  মাধবপুর উপজেলার হারিয়া গ্রামের এক নিরিহ ভূমি মালিকের কাছে ৬ লাখ টাকা চাদা না পেয়ে মারধরের অভিযোগে মিজান মেম্বার নামে এক ভূমিদস্যুর বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে।মিজানের বিচারের দাবিতে মানববন্ধন করেছে গ্রামের কিছু লোক।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়নের হাড়িয়া গ্রামের বরজু মিয়ার ছেলে জজ মিয়া ঢাকা সিলেট মহাসড়কের পশ্চিম পাশে নির্মাণাধীন আকিজ বশির গ্লাস ইন্ডাস্ট্রির কাছে পৈতৃক সূত্র পাওয়া ও ক্রয়কৃত ১৫ শতাংশ জমিতে উন্নত জাতের কিছু আমের চারা রোপন করে ফলনের আশায় গাছগুলোর পরিচর্যা করে আসছেন।এ অবস্থায় আন্দিউড়া ইউনিয়নের মেম্বার ও মীরনগর গ্রামের বাসিন্দা মিজানুর রহমানের নজর পড়ে এই ভূমির উপর।ছলে বলে কৌশলে এই জায়গা দখলে ব্যর্থ হয়ে জজ মিয়ার কাছে মিজানুর রহমান অপর সহযোগী আজিজুল মিয়াকে নিয়ে গত ৩ নভেম্বর ৬ লাখ টাকা চাদা দাবী করেন।চাদা দিতে অস্বীকার করলে অজ্ঞাত কয়েকজন সহযোগী নিয়ে গত ৫ নভেম্বর হাড়িয়া গ্রামের পুরাতন ব্রীজের কাছে ঢাকা সিলেট সহাসড়কের পুর্বপাশের রাস্তায় জজ মিয়াকে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে আক্রমন করে মারপিট শুরু করলে আশেপাশের লোকজন এসে জজ মিয়াকে রক্ষা করে।গুরুতর আহত জজ মিয়া ব্রাহ্মনবাড়িয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।এ ঘটনায় মিজানুর রহমান,আজিজুল মিয়া ও অজ্ঞাত ২/৩ জন সহযোগীকে আসামী করে মাধবপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন জজ মিয়া।একই ঘটনায় মিজানুর রহমান মেম্বার ও তার সহযোগীদের বিচারের দাবিতে আজ রবিবার (১২ নভেম্বর) হাড়িয়া গ্রামের কিছু লোক মানববন্ধন করেছেন।জজ মিয়ার স্ত্রী ছালেমা বেগম জানান,তার স্বামী এ ঘটনার পর স্ট্রোক করে বর্তমানে শয্যাশায়ী। তারা সুবিচার চান।

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমানের বক্তব্য জানতে তাকে একাধিকবার ফোন দিলেও রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

যোগাযোগ করলে আন্দিউড়া বিটের পুলিশ কর্মকর্তা এসআই সাইদুল ইসলাম জানান, ‘উক্ত জমিতে ১৪৪ ধারা জারী রয়েছে।চাদাবাজির অভিযোগে মামলার বিষয়টি জানা নেই।আমি ছুটিতে রযেছি।’

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ