নেপালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে নিহত ১২৯

প্রকাশিত:শনিবার, ০৪ নভে ২০২৩ ১০:১১

নেপালে ভয়াবহ ভূমিকম্পে নিহত ১২৯

নেপালে ৬ দশমিক ৪ মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্প আঘাত এনেছে। এতে অন্তত ১২৯ জন নিহত হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে। নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা।

ইন্ডিয়া টিভির খবরে বলা হয়েছে, ভূমিকম্পটির উপকেন্দ্র ছিল পশ্চিম নেপালের জাজারকোট নামে একটা এলাকা। শুক্রবার মধ্যরাতে এই ভূমিকম্প আঘাত হানে। পার্শ্ববর্তী পশ্চিম রুকুম এলাকাও এই ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ৯২ জনই জাজারকোট জেলার। এ ছাড়া আহত হয়েছে অন্তত ৫৫ জন। এলাকাটির উপ-পুলিশ সুপার সন্তোষ রোকা হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে চিকিৎসার জন্য।

এদিকে, পশ্চিম রুকুমে ভূমিকম্পে নিহত হয়েছে অন্তত ৩৭ জন। জেলার উপ-পুলিশ সুপার নমরাজ ভট্টারি প্রাণহানির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, জেলায় ভূমিকম্পে ৮৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতদের জেলা সদরের সরকারি হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহাল ভূমিকম্পে হতাহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেছেন।

শনিবার নেপালের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত বেশ কয়েকটি এলাকার সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। কর্মকর্তাদের মতে, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দাহাল হেলিকপ্টারে করে রুকুম ও জাজারকোট সফর করবেন। মেডিক্যাল টিম ও ওষুধ নিয়ে ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ওড়ার জন্য তিনটি হেলিকপ্টার প্রস্তুত করা হয়েছে।

নেপালের এই ভূমিকম্পের মাত্রা এত তীব্র ছিল যে, ভারতের দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড ও বিহারেও কম্পন অনুভূত হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

বিগত এক মাসের মধ্যে তৃতীয়বারের মতো এত শক্তিশালী ভূমিকম্প আঘাত হানলো নেপালে। হিমালয়ের পাদদেশের দেশ নেপাল বিশ্বের অন্যতম সক্রিয় টেকটোনিক অঞ্চলে অবস্থিত। ফলে এটি ভূমিকম্পের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা। ২০১৫ সালে দেশটিতে ৭ দশমিক ৮ মাত্রার একটি শক্তিশালী ভূমিকম্পে প্রায় ৯ হাজার মানুষের মৃত্যু ও ১০ লাখ অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।