ফিলিস্তিনে আল-আকসা মসজিদ বন্ধ করে দিল ইসরায়েল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২৪ অক্টো ২০২৩ ০৯:১০

ফিলিস্তিনে আল-আকসা মসজিদ বন্ধ করে দিল ইসরায়েল

ইসরায়েল-হামাস সংঘাত টানা ১৭ দিন ধরে চলছে। ৭ অক্টোবর ইসরায়েলের মাটিতে হামাসের আকস্মিক হামলার পর থেকেই গাজা উপত্যকায় ধারাবাহিকভাবে বোমাবর্ষণ করা হচ্ছে। ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনীর এসব বোমার আঘাতে পাঁচ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি প্রাণ হারিয়েছে। আহত হয়েছে আরও কয়েক গুণ বেশি।

চলমান সংঘাতের ধারাবাহিকতায় এবার জেরুজালেমে অবস্থিত আল-আকসা মসজিদ মুসলিমদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত কয়েক মাসের মধ্যে এই প্রথম পূর্ব জেরুজালেমে অবস্থিত আল-আকসা মসজিদে মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে ইসরায়েলের পুলিশ। পবিত্র এই মসজিদ কম্পাউন্ডের দায়িত্বে থাকা ইসলামিক ওয়াক্ফ ডিপার্টমেন্ট এই তথ্য জানিয়েছে।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুসলিমদের প্রবেশ বন্ধ করে দেওয়া হলেও মঙ্গলবার সকালে ইহুদি উপাসকেরা স্বাভাবিক নিয়মেই আল-আকসা কম্পাউন্ডে প্রবেশ করেছেন এবং ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন।
পূর্ব জেরুজালেমের পাহাড়চূড়ায় অবস্থিত আল-আকসা মুসলিমদের কাছে ‘হারাম আল-শরীফ’ নামে পরিচিত হলেও ইহুদিদের কাছে এটি তাদের পবিত্রতম স্থান ‘টেম্পল মাউন্ট’।

আল-আকসা মসজিদকে মক্কা ও মদিনার পরই ইসলামের তৃতীয় সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে বিবেচনা করা হয়। মুসলমানরা বিশ্বাস করেন, নবী মুহাম্মদ (সা.) মেরাজের রাতে কাবা শরিফ থেকে প্রথমে আল-আকসায় এসেছিলেন এবং মেরাজে গমনের আগে এখানে সব নবীর সঙ্গে নামাজের সময় ইমাম হিসেবে নামাজ আদায় করেন।

আল-আকসাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা প্রায়ই ঘটে। চলতি বছরের শুরুতেও সেখানে ইসরায়েলি পুলিশ ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।