গাজায় স্থল অভিযান বিলম্বিত করতে ইসরায়েলকে চাপ দিচ্ছে পশ্চিমা বিশ্ব

প্রকাশিত:শনিবার, ২১ অক্টো ২০২৩ ১০:১০

গাজায় স্থল অভিযান বিলম্বিত করতে ইসরায়েলকে চাপ দিচ্ছে পশ্চিমা বিশ্ব

অবরুদ্ধ ফিলিস্তিনি অঞ্চল গাজায় স্থল অভিযান বিলম্বিত করতে ইসরায়েলকে চাপ দিচ্ছে পশ্চিমা বিশ্বের দেশগুলো। ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী গোষ্ঠী হামাস দুই মার্কিন নাগরিককে মুক্তি দেওয়ার পর এই চাপ আরও বেড়েছে। ইসরায়েল সরকারের এক শীর্ষ কূটনীতিবিদের বরাত দিয়ে দেশটির সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইসরায়েল এ দাবি করেছে।

টাইমস অব ইসরায়েলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই শীর্ষ কূটনীতিবিদ জানিয়েছে, পশ্চিমা বিশ্ব আশঙ্কা করছে, এ দুই জিম্মিকে দেওয়ার ফলে অন্যান্য পশ্চিমা জিম্মির মুক্তি পাওয়ার বিষয়ে যে আশাবাদ বা সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে, ইসরায়েল স্থল অভিযান শুরু করলে সেই প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত হতে পারে। তাই যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশের সরকার ইসরায়েলকে স্থল অভিযান চালানো থেকে আপাতত বিরত থাকার জন্য চাপ দিচ্ছে।

ওই কূটনীতিবিদ আরও জানিয়েছেন, পশ্চিমা বিশ্বের সরকারগুলো যারা স্থল অভিযান বিলম্বিত করতে চাপ দিচ্ছে, তাদের প্রত্যেক দেশেরই নাগরিক জিম্মি রয়েছে হামাসের কাছে। সরকারগুলো বিশ্বাস করে, জিম্মি মুক্তির প্রক্রিয়া যত বিলম্বিত হবে, তাদের মুক্তির বিষয়টি তত জটিল হতে থাকবে। তিনি জানান, ইসরায়েল স্থল অভিযান একেবারেই বন্ধ করে দিক এমনটা চায় না পশ্চিমা বিশ্ব। তবে জিম্মিদের মুক্ত করার জন্য আপাতত তা স্থগিত রেখে কূটনৈতিক পদ্ধতি অনুসরণ করে ফল লাভ করা যায় কি না, সে বিষয়টি বিবেচনা করছে।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলা চালিয়ে সহস্রাধিক মানুষকে হত্যা করেছিলেন হামাস যোদ্ধারা। শুধু তাই নয়, তাঁরা শতাধিক মানুষকে জিম্মি করেও নিয়ে যান। এসব জিম্মির মধ্যে দুই আমেরিকানও ছিলেন। আজ শুক্রবার ওই দুজনকে ছেড়ে দিয়েছে হামাস। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, হামাসের সামরিক শাখা আল-ক্বাসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র বলেছেন, মানবিক কারণে দুই মার্কিন জিম্মিকে তাঁরা মুক্তি দিয়েছেন।

আল-ক্বাসাম ব্রিগেডের মুখপাত্র আবু ওবাইদা এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘কাতারের প্রচেষ্টার ফল হিসেবে আল-ক্বাসাম ব্রিগেড মানবিক কারণে দুই আমেরিকান নাগরিককে (একজন মা ও তাঁর মেয়ে) মুক্তি দিয়েছে।’ আবু ওবাইদা দাবি করেন, দুজনকে মুক্ত করে তাঁরা আমেরিকান জনগণ এবং বিশ্বের কাছে প্রমাণ করতে চান যে বাইডেন ও তার প্রশাসনের দাবিগুলো মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন।

এদিকে জিম্মিদের কয়েকজনকে মুক্তি দেওয়ার বিনিময়ে ইসরায়েলিদের হামলা বন্ধের প্রস্তাব দিয়েছে হামাস। তবে ইসরায়েল এখনো এই প্রস্তাবে রাজি হয়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি।