যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য! স্বামীকে ত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মেলোনি

প্রকাশিত:শুক্রবার, ২০ অক্টো ২০২৩ ০৬:১০

যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য! স্বামীকে ত্যাগ করলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী মেলোনি

টেলিভিশন সাংবাদিক স্বামী আন্দ্রেয়া গিয়ামব্রুনোর সঙ্গে বিচ্ছেদের ঘোষণা দিলেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী জর্জিয়া মেলোনি। সম্প্রচার মাধ্যমে যৌন ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করায় গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছিলন গিয়ামব্রুনো।

স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের ঘোষণা দিয়ে আজ শুক্রবার একটি ফেসবুক পোস্টে মেলোনি লিখেছেন, ‘আন্দ্রেয়া গিয়ামব্রুনোর সঙ্গে আমার ১০ বছরের সম্পর্ক এখানেই শেষ।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘আমাদের পথ কিছু সময়ের জন্য ভিন্ন পথে চলে গেছে এবং সময় এসেছে এটিকে স্বীকার করে নেওয়ার।’

মেলোনি ও গিয়ামব্রুনো দম্পতির একটি কন্যা আছে। এনডিটিভি জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী মেলোনির মিত্র এবং সাবেক প্রধানমন্ত্রী সিলিভিও বারলোসকোনির মালিকানাধীন এমএফই মিডিয়া গ্রুপের সম্প্রচার মাধ্যম মিডিয়াসেটে সংবাদ বিষয়ক একটি অনুষ্ঠানে প্রেজেন্টার হিসেবে কাজ করেন গিয়ামব্রুনো। সম্প্রতি তিনি তার অনুষ্ঠান পরিচালনা করতে গিয়ে ক্যামেরার অন্তরালে অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করেন এবং একজন নারী সহকর্মীকে কুপ্রস্তাব দেন। এই বিষয়গুলো মিডিয়াসেটেরই আরেকটি অনুষ্ঠানে ফাঁস করে দেওয়া হয়েছে।

ফাঁস হওয়া একটি কথোপকথনে গিয়ামব্রুনোকে তাঁর এক নারী সহকর্মীর উদ্দেশে বলতে শোনা যায়—‘কেন তোমার সঙ্গে আমার আগে দেখা হলো না?’

গত বৃহস্পতিবার একই অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় আরেকটি পর্বে গিয়ামব্রুনোর আরও কুকীর্তি ফাঁস করা হয়। সেই পর্বে গিয়ামব্রুনোকে বলতে শোনা যায়— তিনি কয়েকজন নারী সহকর্মীকে তাঁর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেতে ‘দলবদ্ধ হয়ে যৌনতা’র আহ্বান জানাচ্ছেন।

এর আগে গত আগস্টেও একটি সংঘবদ্ধ ধর্ষণের মামলায় ভুক্তভোগিকে দোষারোপ করে মন্তব্য করার জন্য ব্যাপক সমালোচিত হয়েছিলেন গিয়ামব্রুনো। তিনি তাঁর প্রোগ্রামে সে সময় ভুক্তভোগীকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন, ‘আপনি যদি নাচতে যান, তবে আপনার মাতাল হওয়ার অধিকার আছে। এতে কোনও ধরনের ভুল বোঝাবুঝি এবং কোনও ধরনের সমস্যা হওয়া উচিত নয়। তবে আপনি যদি মাতাল না হন এবং স্বাভাবিক থাকেন তবে কিছু সমস্যা এবং নেকড়ের পালের মধ্যে ছুটে যাওয়া আপনার এড়ানো উচিত।’

সেই বিতর্কের পর মেলোনি বলেছিলেন, তাঁর স্বামীর মন্তব্যের জন্য তাকে বিচার করা উচিত নয় এবং ভবিষ্যতে তিনি তাঁর স্বামীর আচরণ সম্পর্কে কোনো প্রশ্নের উত্তর দেবেন না।