ছাতকে তদবিরে ব্যর্থ হয়ে ওসি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচার

প্রকাশিত:বুধবার, ১৬ ফেব্রু ২০২২ ১০:০২

ছাতকে তদবিরে ব্যর্থ হয়ে ওসি’র বিরুদ্ধে অপপ্রচার

হাসান, ছাতক প্রতিনিধি:-  সুনামগঞ্জের ছাতকে সংরক্ষিত হাঁদা টিলা কেটে পাথর চুরির ঘটনায় হাতে নাতে পাথর খেকো চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

গত ১২ ফেব্রুয়ারী (শনিবার) ফকিরটিলা টু কনিমুড়া সড়কের হাসান মার্কেটের সামন থেকে পাথর চুরি করে নিয়ে যাওয়ার সময় একটি নাম্বার বিহীন ট্রাক্টরসহ তাদের আটক করা হয়। আটকৃতরা হলো, উপজেলার নোয়ারাই গ্রামের মৃত. সুলতান আহমদের ছেলে আব্দুর রউফ, একই গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে ইউছুফ আলী।

এ ঘটনায় আসামীদের পক্ষে তদবির করে ব্যর্থ হয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিছু ফেইক আইডি ও পেইজ থেকে ছাতক থানার ওসি মাহবুর রহমানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায়, সরকারী বনভূমি হাদা টিলা কেটে পাথর চুরি করে নিয়ে যাওয়া গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালানা করেন ছাতক থানার এস আই মোশারফ হোসেন ও সঙ্গীয় ফোর্স। এ সময় আশি ফুট চুরাই পাথর, মেসার্স খাঁন ট্রেডার্স লেখা একটি নাম্বার বিহীন ট্রাকটর জব্দ করা হয়। দুজনকে আটক করা হলেও আরো ৬ জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় এস আই মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে ছাতক থানায় মামলা নং ০৬, ১২.০২.২০২২ ইং দায়ের করা হয়।

উল্লেখ্য: হাঁদা টিলা পাথর খেকোদের আগ্রাসনে ধবংস স্তুপে পরিনণত হয়েছে। স্থানীয় একটি পাথর খেকো ও বৃক্ষ নিধনকারী চক্র মিলে টিলা কেটে পাথর উত্তোলন ও বাগানের গাছ কেঁটে উজার করে ফেলছে। ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে বন্ধ হচ্ছেনা এসব পাথর খেকো ও বৃক্ষ নিধনকারী চক্রের আগ্রাসন। ফলে সরকারি বনায়ন প্রকল্প, টিলা ও পরিবেশ ধবংস হচ্ছে। সম্প্রতি সময়ে ছাতক থানায় যোগদানের পর ওসি মাহবুবুর রহমান পাথর খেকো চক্রের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিলে নানা মুখি অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে এই চক্রের সহযোগীরা। সরকারী বনভূমী হাঁদা টিলা রক্ষায় অবদান রাখায় স্থানীয়রা ওসি মাহবুবুর রহমান এর ভূয়ুসী প্রসংশা করেন। এ ধরনের অভিযান অব্যাহত রাখার দাবি জানান স্থানীয়রা।

এ বিষয়ে ছাতক থানার ওসি মাহবুবুর রহমান গ্রেফতার ও মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, হয়তো তদবির করে ব্যর্থ হয়ে এমন অপপ্রচার করা হচ্ছে। তাদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ