শাবির ছাত্র আন্দোলনের সমর্থনে এনডিএফ এর বিক্ষোভ সমাবেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার, ২৫ জানু ২০২২ ০৬:০১

সুরমাভিউ:-  শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সাথে সংহতি প্রকাশ করে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট (এনডিএফ) সিলেট জেলা শাখা। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৫টায় সুরমা মার্কেটস্থ জেলা কার্যালয় থেকে মিছিল শুরু হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে সিলেট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন এনডিএফ সিলেট জেলা শাখার সভাপতি এডভোকেট কুমার চন্দ্র রায়।

জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শাহীন আলমের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন সংঘ সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ ছাদেক মিয়া, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট সিলেট জেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক রমজান আলী পটু, জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট শাহপরান থানা কমিটির সভাপতি মোঃ খোকন আহমদ, জাতীয় ছাত্রদল শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহসভাপতি রুপেল চাকমা, সাধারণ সম্পাদক ওসমান গনি, সিলেট জেলা শাখার অন্যতম নেতা শুভ আজাদ শান্ত, সিলেট জেলা প্রেস শ্রমিক সংঘর সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সরকার,  সিলেট জেলা হোটেল শ্রমিক ইউনিয়ন এর সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, শাবিপ্রবির ছাত্রী হলের শিক্ষার্থীরা তাদের হলের আভ্যন্তরীণ কতিপয় সমস্যার কথা জানালে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রীদের সেই সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ না নিয়ে ছাত্রীদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। ছাত্রীরা এর প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন শুরু করলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন প্রথমে ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসী ব্যবহার করে হামলা চালিয়ে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন দমনের চেষ্টা চালায়। পরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পুলিশ ডেকে এনে শিক্ষার্থীদের উপর নির্বিচারে লাঠিচার্জ, টিয়ার শেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। এতে প্রায় বহুসংখ্যক শিক্ষার্থী আহত হয়। শাবি কর্তৃপক্ষের এই আচরণ অত্যান্ত ন্যাক্কারজনক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে একটি ঘৃণ্যতম ঘটনা। জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট  সিলেট জেলা শাখার পক্ষ থেকে শাবিপ্রবির প্রশাসনের এই ঘৃণ্যতম ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে অনতিবিলম্বে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার জন্য জোর দাবি জানান।

বক্তারা আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের চেতনার সাথে মুক্তবুদ্ধি চর্চা, স্বাধীন মতপ্রকাশ ও আধুনিক জ্ঞান বিজ্ঞান সৃষ্টির ধারণা জড়িত। কিন্তু বাংলাদেশর প্রচলিত স্বৈরাচারী রাষ্ট্রকাঠামোর মধ্যে মুক্তবুদ্ধি চর্চার সুযোগ সম্ভব নয়। প্রকৃত মুক্তবুদ্ধি চর্চার জন্য জাতীয় গণতান্ত্রিক বিপ্লব সম্পন্ন করে গণতান্ত্রিক সমাজ ও রাষ্ট্র বিনির্মাণের বিকল্প নেই।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ