বড়লেখায় জোরপূর্বক জমি দখল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১ ০১:০৬

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের কুমারশাইল গ্রামের বাসিন্দা ফ্রান্স প্রবাসী ইলিয়াছ আলী গং জোরপূর্বক ভাবে জমি দখল করে আসছেন।

শাহবাজপুর ইউনিয়নের ভূগা-চান্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আলিমপুর গ্রামের বাসিন্দা মাষ্টার ফজুলুল করিম(৭০) তাঁহার ভাই মোঃসমছুল ইসলাম ও ফুফাতো ভাই মোঃ লুৎফুর রহমান গং তাদের ক্রয়কৃত পিতৃক ভূমি কুমারশাইল মৌজায় ফতেহবাগ চা বাগান সংলগ্ন, সাইল ২৭০ দাগের ৩১ শতাংশ ভূমি কুমারশাইল গ্রামের বাসিন্দা ফ্রান্স প্রবাসী ইলিয়াছ আলী গং জোরপূর্বক ভাবে ভূগদখল করে আসছেন।

অবশেষে,২০১৮ সালের জুলাই মাসে ৪নং উত্তর শাহবাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আহমদ জুবায়ের লিটন মাষ্টারের সরানোপূর্ণ হলে,সরোজমিনে উভয় পক্ষের সম্মতিতে দু জন মহরির দুদু মিয়া,প্রমত বাবু সমন্নয়ে এলাকার সালিশ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ রফিক উদ্দিন আহমদ, এনামুল হক, মোঃ নজরুল ইসলাম,আব্দুস শুক্কুর, মোঃ ইসমাইল আলী,হারু মিয়া,আব্দুন নূর পক্ষেঃ ইসহাক, মোঃ মুতিউর রহমান(মতি),ফজলু মিয়া সালিশগণ জমির কাগজ পত্র দেখে ও পরিমাপ করে ঐ ভূমি থেকে অবৈধ রুপন কৃত গাছ কাটে নেওয়ার জন্য ইলিয়াস আলীকে সময় বেঁধে নির্দেশ দেন। কিন্তু ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আহমদ জুবায়ের লিটন মাষ্টারের সালিশকে অবজ্ঞা করে গাছগুলো কাটেন না ফ্রান্স প্রবাসী ইলিয়াস আলী , পরবর্তীতে সালিশ গণের রায়ের প্রেক্ষিতে গাছ গুলি কাটা হলে, ২২ জুন মঙ্গলবার দুপুরে ফ্রান্স প্রবাসী ইলিয়াছ আলীর বড় ভাই ইসহাক আলী,আলিমপুর গ্রামের বাসিন্দা মাষ্টার ফজুলুল করিম(৭০) তাঁহার ভাই মোঃসমছুল ইসলাম ও মোঃ লুৎফুর রহমান এ চারজনের নাম উল্লেখ করে শাহবাজপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগ দেওয়ার পর পুলিশ সরোজমিনে পরির্দশন করেন। পরির্দশন করার পর মাষ্টার ফয়জুল করিমের ভাই সমছুল ইসলাম বিক্রিত কাঠের মূল্য ১৬(ষোল হাজার টাকা) হস্তান্তর করেন।

কয়েকবার গ্রাম এলাকার লোকজন নিয়ে সালিশের চেষ্টা করা হলে ব্যর্থ হন।

প্রসঙ্গতঃ এখন বিষয়টি শাহবাজপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ খুরশেদ আলম ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আহমদ জুবায়ের লিটন মাষ্টারের নিকট বিচারাধীন অপেক্ষমান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ