ইউএনও বরাবরে অভিযোগ কানাইঘাট সুনাতনপুঞ্জিতে নিরীহদের খাস জমি দখলের পায়তারা

প্রকাশিত:শনিবার, ২২ মে ২০২১ ০৬:০৫

কানাইঘাট প্রতিনিধি:-  কানাইঘাট উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপির টিলা বেষ্টিত সনাতনপুঞ্জি মৌজায় অবস্থিত নিরীহ লোকজনদের দখলে থাকা খাস জমি জবর দখলের পায়তারার অভিযোগ এনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

গত সোমবার সোনাতনপুঞ্জি গ্রামের মৃত রাশিদ আলীর পুত্র আব্দুন নুর বাদী হয়ে এ অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায় সীমান্তবর্তী সোনাতনপুঞ্জি মৌজার ১ নং খাস খতিয়ানের দাগে প্রায় ১৩ একর জমি দীর্ঘ ৩৫ বছর থেকে ভোগ দখল করে আসছেন বৃদ্ধ আব্দুন নুর সহ ৭ দরিদ্র দিন মজুর পরিবার।

অভিযোগে আরো উল্যেখ করা হয় গত ৫ বছর পূর্ব হতে বাউরভাগ দ্বিতীয় খন্ড গ্রামের মৃত সিদ্দিক আলীর পুত্র দলিল লিখক বুরহান উদ্দিনের লুলুপ দৃষ্টি পড়ে ঐ টিলা রকম ভুমির উপর। এরপর থেকে বুরহান উদ্দিন উক্ত ভুমি থেকে আব্দুন নুর গংদের উচ্ছেদ করার জন্য জবর দখলের পায়তারা করে যাচ্ছেন। সর্বশেষ গত রবিবার সকাল ৮টার দিকে বুরহান উদ্দিন প্রায় অর্ধশতাধিক লোকজন সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে উক্ত টিলা রকম ভুমির বেশ কয়েক বিঘা জমি জবর দখলে যান। সেখানে আব্দুন নুর গংদের লাগানো লেবু, কাঠাঁল, আনারস, আম ও সুপারীর গাছগুলো কাটতে শুরু করেন। বিশেষ করে সুপারী গাছের চারাগুলো উপড়ে ফেলে কয়েক লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করেন। পরে ভুমির দখলীয় মালিক আব্দুন নুর গংরা দলীল লেখক বুরহান উদ্দিন সহ তার পক্ষের ২২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ১৫ থেকে ২০ জনকে আসামী করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

গত শুক্রবার সরেজমিনে সুনাতনপঞ্জি গ্রামে গেলে ১৩ একর দখলীয় ভুমির মালিক আব্দুন নুর, আব্দুল মনাফ, আব্দুস ছালাম, রফিক উদ্দিন, আব্দুস সালাম, আব্দুস শুক্কর, শফিকুল হক ও আব্দুর রব জানান তারা প্রায় ৩৫ বছর থেকে শান্তিপূর্ণ ভাবে টিলা রকম খাস খতিয়ানের এ ভুমি ভোগ দখল করে তথায় ঘরবাড়ি নির্মাণ সহ নানা ধরণের ফলজ গাছপালা রোপন করে জিবীকা নির্বাহ করে আসছেন। পূর্বে উক্ত টিলা রকম ভুমির মালিক ছিলেন তারা ৯ জন। এর মধ্যে তাদের ১ জনের দখলীয় ভুমি ক্রয় করেন বুরহান উদ্দিন। এতে বুরহান উদ্দিন মহরী তার ক্রয়কৃত ভুমিতে রয়েছেন। কিন্তু বর্তমানে বুরহান উদ্দিন মহরী নতুন কাগজ পত্র তৈরী করে তাদের বেশ কিছু জমির দখল থেকে উচ্ছেদ করার নানা পায়তারা করে যাচ্ছেন বলে তারা জানিয়েছেন। এমনকি তারা এ জমি ছেড়ে না দিলে তাদেরকে নানা মামলা মখদ্দমায় জড়ানো সহ বিভিন্ন ক্ষয়ক্ষতির হুমকী প্রদান করছেন।

এ ব্যাপারে দলিল লেখক বুরহান উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন তিনি কারো জমি দখল করেননি সেখানে তার ক্ষয়কৃত জমি রয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ