রায়হান হত্যাকাণ্ড মামলায় এসআই আকবরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র

প্রকাশিত:বুধবার, ০৫ মে ২০২১ ০১:০৫

সুরমাভিউ:-  সিলেটে পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতনে রায়হান হত্যাকাণ্ড মামলায় এসআই আকবরকে (বরখাস্ত) প্রধান আসামি করে পাঁচ পুলিশসহ অভিযোগপত্র কোর্ট পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বুধবার (৫ মে) সকাল ১১টায় পিবিআই তদন্তকারী দল সিলেট কোর্ট ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার দাসের কাছে অভিযোগপত্রটি হস্তান্তর করে।

আসামি এসআই মো.আকবর হোসেন ভূইঁয়া, কনস্টেবল হারুন অর রশিদ, কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস, এএসআই আশেক এলাহীর বিরুদ্ধে নির্যাতন এবং হেফাজতে মৃত্যু (নিবারন) আইন, ২০১৩-এর ১৫ (২) (৩) ধারা, তৎসহ পেনাল কোডের ৩০২ ও ২০১ ধারার অপরাধ প্রমাণ পাওয়া গেছে।

এসআই মো.হাসান উদ্দিন ও স্থানীয় সাংবাদিক আব্দুল্লাহ আল নোমানের বিরুদ্ধে পেনাল কোড ২০১ ধারার অপরাধ প্রাথমিকভাবে প্রমাণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে অভিযোগপত্রে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিলেট কোর্ট ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার দাসের কাছে বলেন, বহুল আলোচিত রায়হান হত্যা মামলার অভিযোগপত্র পিবিআই পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে। করোনাভাইরাসের কারণে আদালতের কার্যক্রম ভার্চ্যুয়াল পদ্ধতিতে চলার কারণে অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হচ্ছে না। আদালতের কার্যক্রম শুরু হওয়ার পর পরই অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হবে।

উল্লেখ্য- গত বছরের ১০ অক্টোবর গভীর রাতে সিলেট নগরীর আখালিয়ার এলাকার বাসিন্দা রায়হান আহমদকে কাষ্টঘর এলাকা থেকে ধরে নিয়ে বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে নির্যাতন করেন ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আকবর হোসেন ভুঁইয়াসহ পুলিশ সদস্যরা। পরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

রায়হান হত্যার পরদিন তার স্ত্রী তাহমিনা আক্তার তান্নী বাদী হয়ে কোতোয়ালি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রধান অভিযুক্ত বন্দরবাজার ফাঁড়ির এসআই আকবর হোসেন ভুঁইয়া, এসআই হাসান উদ্দিন, এএসআই আশেক এলাহী, কনস্টেবল টিটু চন্দ্র দাস ও হারুনুর রশিদকে গ্রেফতর করেছে পুলিশ।